দুদক আ. লীগের ভালো লন্ড্রি:গয়েশ্বর।


দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের ভালো লন্ড্রী বলে আখ্যা দিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। 


তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগের লোকেরা দুর্নীতি করে। এগুলোর বিরুদ্ধে মামলা দেয় দুদক। কয়েকদিন পর সাফারি সার্টিফিকেট দেয়, আমি বলছি, এইটা একটা ভালো লন্ড্রি। এখানে আওয়ামী লীগের লোকেরা যাবে, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন একটা সার্টিফিকেট নিয়ে আসবে। আর বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের হয়রানি করা হয়। অর্থাৎ এটা রাজনৈতিক কারণে ব্যবহার করা হয়





তিনি আরও বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশন যদি তার কাজটা ঠিকভাবে করে, তাহলে দুর্নীতির রশি টেনে ধরা যায়। কিন্তু, দরবেশের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন কী করবে? কিছু করার আছে? কিছুই করার নেই। সে কারণে বর্তমান পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণ নিয়ে জনগন একটা সুশাসন চায়। আর এই সুশাসন নিশ্চিত করতে গেলে, দুর্নীতিকে নির্মূল করতে গেলে, অপশাসনকে রাষ্ট্রীয় যন্ত্র থেকে বিতাড়িত করতে হলে, জাতীয় ঐক্যমতের একটা জাতীয় সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।


আজ বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে জাতীয়তাবাদী কৃষক দল আয়োজিত ‘কৃষি উপকরণের সীমাহীন মূল্যবৃদ্ধি ও সেচের পানির অভাবে কৃষকের আত্মহত্যার কারণ উদ্ঘাটন ও দায়ী ব্যক্তিদের বিচারের দাবি’ শীর্ষক প্রতিবাদ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।





গয়েশ্বর বলেন, সত্য প্রতিষ্ঠা, ন্যায় প্রতিষ্ঠা করার জন্য কোনো অজুহাত থাকে না। কারণ ন্যায় প্রতিষ্ঠা করার যুদ্ধ, ধর্মীয় যুদ্ধের মতোই একটা যুদ্ধ। সেই কারণেই বলছি আমাদের রোজা-পূজা, শীতের আগে শীতের পরে, ঈদের আগে ঈদের পরে এই ভাবনা পরিত্যাগ করেন। প্রতি মূহূর্তই এই ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য মাঠে মাঠে, প্রান্তরে প্রান্তরে ঘুরে বেড়াতে হবে। মানুষের মনে আজকে যে ক্ষোভ, সেই ক্ষোভটাকে বিস্ফোরণের মতো রাজ পথে আনতে হবে। মন থেকে সকল দুর্নীতির চিন্তা বাদ দিয়ে দেশের স্বার্থের কথা বিবেচনা করে দেশটা বদলে দিতে পারলে জিয়াউর রহমানের বিএনপি প্রতিষ্ঠা স্বার্থক হবে এবং বিএনপি জনগণের মনে চিরস্থায়ীভাবে থাকবে।





সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন কৃষক দলের সভাপতি হাসান জাফির তুহিন, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, ঢাকা দক্ষিণের আহ্বায়ক আবদুস সালাম প্রমুখ।

0/Post a Comment/Comments

Stay Conneted